ঢাকার ফার্মগেট এলাকায় গেলে দেখতে পাওয়া যায় বৈদ্যুৎতিক তারগুলো এলোমেলো ভাবে ঝুলছে। এগুলো একেকটি খুঁটি যেন একেকটি মরণ ফাঁদ।

যদি তার এবং খুঁটিগুলো না থাকতো কিন্তু বৈদ্যুৎ কানেকশন ও ঠিক থাকতো তাহলে কেমন হত?

কিছুটা অবস্তাব মনে হতেই পারে। তার বিহীন বৈদ্যুৎ পরিবহনের কথা সাধারন মস্তিষ্কে চিন্তা করাটা একটু জটিল।

আজ থেকে প্রায় একশত বছর আগে নিকোলাই টেসলা নামক একজন ব্যক্তি বলেছিলেন তার বিহীন বৈদ্যুৎ পরিবহনের কথা। কিন্তু আর্থিক অসচ্ছলতার কারনে সে এই বিষয় টা নিয়ে বেশি দূর এগোতে পারে নি।

একশত বছর পর তারবিহীন মোবাইল চার্জার বানাতে সক্ষম হয় বিজ্ঞানীরা।

এই প্রযুক্তির আরও এক ধাপ উপরে চিন্তা করছেন এম.আই .টির এর একদল গবেষক। তারবিহীন বিদ্যুৎ পরিবহনের ব্যাপক হারে প্রয়োগের পরীক্ষামুলক কাজ করছেন তারা। ধারনা করা হচ্ছে আগামী দশকে এই পদ্ধতি বিশ্বব্যাপি ছড়িয়ে দেওয়া সম্ভব হবে।

মানব সভ্যতার যুগান্তকারী পরিবর্তন নিয়ে আসবে ওয়্যারলেস ইলেক্ট্রিসিটি

এম.আই .টির এর একদল গবেষক তারবিহীন বিদ্যুৎ পরিবহনের বিষয়টি দীর্ঘদিন যাবত কাজ করে যাচ্ছেন এবং তারা এর সফলতার মুখ দেখতে শুরু করেছেন।

ভিডিওটি দেখলে বিষয়টি আরও অনেক বেশি পরিস্কার হয়ে যাবে।